1. mumin.2780@gmail.com : admin : Muminul Islam
  2. Amenulislam41@gmail.com : Amenul :
  3. rajubdmmail01@gmail.com : A Haque Raju : A Haque Raju
  4. smking63568@gmail.com : S.M Alamgir Hossain : S.M Alamgir Hossain
কমলগঞ্জে সংখ্যালঘু পরিবারের ৪ জন আহত হওয়ার ঘটনায় থানায় মামলা - আলোরদেশ২৪

কমলগঞ্জে সংখ্যালঘু পরিবারের ৪ জন আহত হওয়ার ঘটনায় থানায় মামলা

  • প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১
  • ২০৬ বার দেখা হয়েছে

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি:
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার পতনঊষার ইউনিয়নের শ্রীসূর্য্য গ্রামের সংখ্যালঘু জিতেন্দ্র কুমার বৈদ্য ওরপে নিখিল মাষ্টারের পরিবার সদস্যদের উপর হামলার ঘটনায় অবশেষে মৌলভীবাজার আদালতের নির্দেশে মঙ্গলবার কমলগঞ্জ থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে। এ ঘটনায় সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ সার্কেল) মো: শহীদুল হক ভূইয়া গত সোমবার সরেজমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ২ জুন সকাল অনুমান পৌনে ১০টায় সংখ্যালঘু জিতেন্দ্র কুমার বৈদ্য ওরপে নিখিল মাষ্টারের বসত বাড়ীর শ্বশানঘাট সংলগ্ন দখলীয় জমিতে পার্শ্ববর্তী মনসুরপুর গ্রামের মিনার আহমদ তার ভাগনা রেজাউল খাঁনসহ অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জন সীমানার পিলার উপরাইয়া কুদাল দিয়া জমিনের আইল কাটিতে থাকিলে জিতেন্দ্র কুমার বৈদ্য ওরপে লিখিল মাষ্টার প্রতিবাদ করলে মিনার আহমদ এর নির্দেশে অন্যান্য আসামীরা নিখিল মাষ্টারকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে বুকের উপর উঠে কিল, ঘুষি ও এলোপাতাড়ীভাবে মারপিট করে জখম করে। এ সময় নিখিল মাষ্টার প্রাণ রক্ষার্থে বসত ঘরে গিয়া আশ্রয় নিলে মিনার আহমদ তার ভাগনা রেজাউল খাঁনসহ অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জন জিতেন্দ্র কুমার বৈদ্য ওরপে নিখিল মাষ্টারের মৃত্যু নিশ্চিত করার জন্য বসতঘরে প্রবেশ করে মারপিট করে। একপর্যায়ে জখমী নিখিল মাষ্টারের হাত, পা রশি দিয়া বেঁধে জিম্মি করে ফেলে। জখমী নিখিল মাষ্টারকে রক্ষা করার জন্য তার স্ত্রী কৃষ্ণা রানী বৈদ্য এগিয়ে গেলে মিনার আহমদ গংরা কৃষ্ণা রানী বৈদ্য, প্রতিবেশি সাবিত্রী রানী বৈদ্য এবং বিধান বৈদ্যের উপর দেশীয় অস্ত্র শস্ত্র সহকারে হামলা করে গুরুতর আহত করে। এ সময় হামলাকারীগণ ঘরে রক্ষিত স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকা চুরি এবং বসত ঘরের আসবাবপত্র ভাংচুর করে ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে। এ ব্যাপারে জিতেন্দ্র কুমার বৈদ্য ওরপে নিখিল মাষ্টারের স্ত্রী কৃষ্ণা রানী বৈদ্য জানান,
আসামী মিনার আহমদ, তার ভাগনা রেজাইল খাঁনসহ অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জন দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র সহ আমাদের জমিনের সীমানার পিলাই উপরায় কুদাল দিয়া আইল কাটিতে গেলে তার স্বামী প্রতিবাদ করায় আসামীগণ তার স্বামীকে জমিতে ফেলিয়া মারপিট করে এক পর্যায়ে আসামীগণ আমাদের বসতঘরে ঢুকে আমার স্বামীকে, আমাকে, আমার ঝা সাবিত্রী রানী বৈদ্য এবং ভাসুরের ছেলে বিধান বৈদ্যকে মারপিট করে আসামীগণ স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকা চুরি করে এবং বসত ঘরের আসবাবপত্র ভাংচুর করে ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে। তিনি আরো জানান, আসামী মিনার আহমদ আমাদের বসত ঘর হইতে দ্রæত বাহির হয়ে যাওয়ার সময় মাথায় আঘাত প্রাপ্ত হয়ে নিজ ইচ্ছায় মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসা গ্রহণ না করে সিলেট এম, এ, জি ওসমানী হাসপতালে গিয়ে আইসিইউর নামে
প্রাথমিক চিকিৎসা গ্রহণ করে ছাড়পত্র না নিয়ে প্রাইভেট একটি ক্লিনিকে
অহেতুক ভর্তি হইয়া চিকিৎসা গ্রহণ করে এলাকায় বিভ্রন্তি সৃষ্টি করছেন। আসামী
মিনার আহমদ অহেতুক সর্বশেষ গত ১২ জুন থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত সিলেট এম, এ, জি
ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মিথ্যা চিকিৎসা গ্রহণ করছে বলে এলাকায়
অপপ্রচার করে আসছেন। কৃষ্ণা রানী বৈদ্য আরো জানান, আসামী মিনার আহমদ এর সাথে আমাদের জমি ও বসত বাড়ীর সীমানা জায়গা গর্ত করে দখল করার বিষয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধীয় বিষয়ে আমার স্বামী স্থানীয় চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার তওফিক আহমদ বাবু,
স্থানীয় ৭নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্যসহ এলাকার স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের দ্বারে দ্বারে একাধিক বার বিচারের সালিশের জন্য চেষ্টা করছেন। আসামী মিনার আহমদ গং বিচার সালিশ না মেনে গত ২ জুন সকালে পরিকল্পিতভাবে এই ঘটনা সংঘটিত করেন।
জমি সংক্রান্ত বিরোধীয় বিষয়ে জিতেন্দ্র কুমার বৈদ্য ওরপে নিখিল মাষ্টারের স্ত্রী কৃষ্ণা
রানী বৈদ্য গত ১৫ জুন বিজ্ঞ সিনিয়ার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ৩নং আমল আদালত,
মৌলভীবাজার সিআর মোকদ্দমা নং-১২৮/২০২১ খ্রিঃ(কমল) দায়ের করিলে বিজ্ঞ আদালত
এফআইআর হিসাবে গণ্য করার জন্য কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জকে নির্দেশ দিলে কমলগঞ্জ থানার মামলা নং-২৫ তারিখ-২২/০৬/২০২১খ্রি. (ধারা-১৪৩/৪৪৮/৩২৩/ ৩০৭/
৩২৫/৪২৭/৩৫৪/৩৮০/৩৪ পেনাল কোড) রুজু করা হয়। এ ঘটনার বিষয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় মৌলভীবাজারের একটি দল সরেজমিনে ঘটনস্থল পরিদর্শন করেন এবং ব্রিটিশ হাইকমিশন থেকে পত্র পেয়েছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির এসআই (নি:)/ মো: আব্দুর রহমান গাজী। মামলার বাদী কৃষ্ণা রানী বৈদ্যের বাড়ীতে তার বড় মেয়ে লন্ডণে বসবাসরত পলিতা রানী বৈদ্য এর প্রেরিত পত্রে উল্লেখ করেন যে, বাংলাদেশে বসবাসরত তাহার পিতার জমি দখল, পিতাসহ তার পরিবারের লোকজনদের মারপিট এবং নিরাপত্তার জন্য ব্রিটিশ হাইকমিশনের মাধ্যমে পত্র প্রেরণ করলে এ বিষয়ে গত ২১ জুন সোমবার বিকাল ৩টায় সরেজমিনে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ সার্কেল) মো: শহীদুল হক ভূইয়া সরেজমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
কমলগঞ্জ থানার ওসি ইয়ারদৌস হাসান আদালতের নির্দেশে কমলগঞ্জ থানায় মামলা রুজু হওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

শেয়ার..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন...

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | আলোর দেশ ২৪ | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Developed By Radwan Ahmed