1. mumin.2780@gmail.com : admin : Muminul Islam
  2. Amenulislam41@gmail.com : Amenul :
  3. smking63568@gmail.com : S.M Alamgir Hossain : S.M Alamgir Hossain
কমলগঞ্জে ধলাই নদীর বাঁধে দুটি স্থানে ভাঙন, ডুবেছে ৪০ গ্রাম - আলোরদেশ২৪

কমলগঞ্জে ধলাই নদীর বাঁধে দুটি স্থানে ভাঙন, ডুবেছে ৪০ গ্রাম

  • প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০২৪
  • ৭৯ বার দেখা হয়েছে

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি::

কমলগঞ্জে ধলাই নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধ ভেঙে লোকালয়ে ঢুকছে পানি। ছবি: নিউজবাংলা

পানির প্রবল চাপে কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের চৈতন্যগঞ্জ ও মুন্সিবাজার ইউনিয়নের খুশালপুরে ধলাই নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের দুটি স্থান ভেঙে গেছে। বাঁধের ভাঙনকবলিত স্থান দিয়ে লোকালয়ে পানি প্রবেশ করে ৪০টি গ্রামের মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। আরও দশটি স্থানে বাঁধ ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে।

টানা বর্ষণ আর উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের প্রভাবে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে ধলাই নদীর পানি বিপৎসীমার ২৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পানির প্রবল চাপে কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের চৈতন্যগঞ্জ ও মুন্সিবাজার ইউনিয়নের খুশালপুরে ধলাই নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের দুটি স্থান ভেঙে গেছে। বাঁধের ভাঙনকবলিত স্থান দিয়ে লোকালয়ে পানি প্রবেশ করে প্রায় ৪০টি গ্রামের মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

কমলগঞ্জ-মৌলভীবাজার সড়কের ছয়কুট এলাকায় এবং আদমপুর ইউনিয়নের কাঁঠালকান্দি-আধাকানি সড়ক পানিতে তলিয়ে গেছে। এছাড়া ধলাই নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের প্রায় ১০টি স্থান ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। ভারী বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে নদীর পানি আরও বৃদ্ধি পেয়ে বন্যার আশঙ্কা করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড ও এলাকাবাসী।

ধলাই নদীর বাঁধ ভেঙে ডুবছে কমলগঞ্জ সদর।

ভারতের ত্রিপুরার গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ত্রিপুরা ও আসামে প্রবল বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে। আর বৃষ্টির সেই পানি ভাটিতে সুরমা, কুশিয়ারা, মনু, ধলাই ও খুয়াই নদী দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে ধলাই নদীতে পানি আরও বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে।

শ্রীমঙ্গল আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা গেছে, এখানে সোমবার ২ মিলিমিটার, মঙ্গলবার ১৩৬ মিলিমিটার ও বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত ৯ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

টানা বৃষ্টিতে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে ধলাই নদীতে পানি বেড়ে চলেছে। ইতোমধ্যে কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের চৈতন্যগঞ্জ ও রহিমপুর ইউনিয়নের খুশালপুর গ্রামে ধলাই নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধে ভাঙন দিয়েছে। ভাঙন দিয়ে পানি প্রবেশ করে নারায়ণপুর, চৈতন্যগঞ্জ, উবাহাটা, খুশালপুর ছয়কুট, আধকানী, কাঁঠালকান্দিসহ প্রায় ৪০টি গ্রামের বিস্তীর্ণ এলাকার ফসলি জমি ও বাড়িঘরে পানি ঢুকছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাকিব আহমেদ বলেন যে, ‘ধলাই নদীর পানি বুধবার সকাল ৯টায় ভানুগাছ রেলওয়ে সেতু এলাকায় বিপৎসীমার ২৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। পরিস্থিতি বিবেচনায় ধলাই নদী পানি উন্নয়ন বোর্ডের সার্বক্ষণিক নজরদারিতে রয়েছে।’

এদিকে ধলাই নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে ধলাই নদীর সঙ্গে সংযুক্ত ড্রেন দিয়ে পানি প্রবেশ করে পৌর এলাকার তিনটি ওয়ার্ডের পানিশালা, চন্ডীপুর ও নছরতপুর এলাকায় বসতবাড়ি, ডাকবাংলো, কমলগঞ্জ মডেল উচ্চ বিদ্যালয়, বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও উপজেলা বাজারে পানি প্রবেশ করেছে।

এছাড়াও উপজেলার পৌর এলাকার খুশালপুর, নিম্নাঞ্চল পতনউষার, মুন্সিবাজার, আদমপুর, ইসলামপুর ও আলীনগর এলাকার পানি লাঘাটা ও খিন্নিছড়ায় উপচে পড়ে ফসলি জমি তলিয়ে গেছে।

ধলাই নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের ঝুঁকিপূর্ণ একটি অংশ। ছবি:

এদিকে ধলাই নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের রামপাশা, শিমুলতলা, রাজারগাঁওসহ প্রায় ১০ স্থান ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। বৃষ্টি ও উজানের ঢল অব্যাহত থাকলে বাঁধের এসব জায়গা ভেঙে আরও বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হতে পারে।

ধলাই নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের ভেঙে যাওয়া ও ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা পরিদর্শন করছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জয়নাল আবেদীন ও কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র জুয়েল আহমদ।

ইউএনও ধলাই নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের দুটি স্থানে ভাঙনের কথা স্বীকার করে বলেন যে, ‘নদীতে পানি বাড়ছে। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছি। বাঁধে নতুন করে ভাঙন ঠেকাতে চেষ্টা চলছে। ইতোমধ্যে বন্যাকবলিত এলাকার মানুষের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ ত্রাণ মজুদ আছে।

শেয়ার..

আরো সংবাদ পড়ুন...
© ২০২৩ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | আলোর দেশ ২৪ | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Developed By Radwan Ahmed